Friday, April 24, 2015

বৃটিশ আমলের মাটির পাত্র (Mud pot from British era)


[English version has given below]

কটকা গিয়েছেন? এটা সুন্দর বনের দক্ষিনে এক অভয়ারণ্য। এখানে বনের মাঝে একটু ফাকা দেখবেন সাগরের পাশে। সেখানে ভাংগা পট বিছানো, বেশ অনেক খানি জায়গা জুড়ে। অজস্র পট থেকে কিছু নেড়ে চেড়ে দেখলাম। এগুলোতে বৃটিশ আমলে পানি ফুটানো হতো। লবন উৎপাদনের জন্য। কোন কোন পট নতুন, কোনটাতে পোড়ানোর দাগ। আরেকটু সাগরের তীরের দিকে গেলে দেখা যায় পুরানো ইট। এখানে ইটের চুলা ছিল। বেশ কিছু আস্ত পট পাওয়া গেল এখানে।

Source: https://www.ldeo.columbia.edu/aggregator/sources/23


বৃটিশরা বাংলাদেশিদের ধরে এনে এখানে বাধ্য করত থাকতে। অনেকটা দাসের মতোন। ছেড়ে দিয়ে চলে যেত ৬ মাস বা ১ বছরের জন্য। বেচারাদের কোন নিরাপত্তা ছিলনা। ওরা বাঘের ভয়ে উচু জায়গায় বাসা বানিয়ে থাকত। বনের ভিতরে এখনও তার প্রমান পাওয়া যায়। তবে আমরা এত গভীরে যাইনি।

এই জায়গাটি সর্ব সাধারনের জন্য উন্মুক্ত। যে কেউ এখানে এসে পট নিয়ে যেতে পারেন (সুভেনিয়র হিসাবে)। এক সময় হয়তো দেখা যাবে, একটা পটও নেই। 


Have you ever been to Katka? It is situated at the southern side of Sundarban (Mangrove forest). While walking through the jungle we found a wide open space near the beach. And we found hundreds of mud/clay pot on that open space. It was a huge space. From those pots I checked some. Some were broken, some were new (in good condition) and some has spot of fire. These pots were used to boil water from the sea to make salt at British era. They use to catch Bangladesh people to work where (Kind of slave) and keep them here from 6 to 1 year. Those people didn't have any protection from this jungle. They use to build home little higher for the safety from tigers. We didn't go deep jungle to see their houses.

Source: https://www.ldeo.columbia.edu/aggregator/sources/23


When we go little close the sea are we found some old bricks. These were use to make burners to hit water. We found some unbroken pot over here.

This place is totally open for anyone. So, anyone can take pots from here... may be as souvenir... I doubt someday people won't find anything over here.

[October 31, 2006]
Post a Comment