Wednesday, July 1, 2015

এখন প্রতিদিন রোজা রাখবে বলেছে (Now he wants to make fast every day)

[English version has given below]

আমার ছেলে যখন প্রথম রোজা রেখেছে, আমি নানা ভাবে ওকে উত্সাহ দিয়েছি। যেমন সারাদিন ইন্টারনেট এ গেম খেলেছে, মোবাইল আর টিভিতেও নানা গেম খেলেছে। খেলনা দিয়ে খেলতে খেলতে আর ভাল না লাগায় আমার কাজের জিনিস ধরতে দিয়েছি ইচ্ছা মতো। ইফতারিতে বানিয়েছি নানা খাবার, যতটা পারি।... শাফিন মহাখুশি।

এখন প্রতিদিন রোজা রাখবে বলেছে। কিছুতেই খেতে চায়না। নানা ভাবে বোঝালাম, এখন বয়স কম, রোজা রাখতেই হবে এমন কোনো কথা নেই। শেষে বাধ্য হয়ে বললাম, এখন থেকে রোজা রাখলে আর খাতির হবে না। খাতির যা হবার প্রথম রোজায় হয়ে গিয়েছে। তোমাকে রোজা রেখে কাজ করতে হবে, পড়াশুনা করতে হবে. ইন্টারনেট পাবে না গেম খেলার জন্য। ও তাতেই রাজি, রোজা ও রাখবেই।

রোজা রাখার পর বলল পেট ব্যথা করছে। আমি বোঝালাম, অসুস্থ হলে রোজা না রাখলে ক্ষতি নেই। আগে সুস্থ হয়ে নাও, তারপর রোজা রেখ। এবার কাজ হলো।  আমিও হাফ ছেড়ে বাঁচলাম।

When Shafeen kept his first Fast, I have encouraged him in many ways to make it happen. To get rid of hunger I let him play game on internet, including mobile and TV game. When he felt bore with his toys, I let him play with my things. I made different kind of food in Iftar, as much as I could... Shafeen was very happy by having this much facilities.

Now he wants to make fast every day. I tried to make him understand he is still very young (6.5 years old) you are not bound to make Fast. Then I had to say, I won't give you facilities like you have in your first of Fasting. No internet and you have to work and study. He agreed and wanted to keep his Fast.

Next day in the morning my son said, he is feeling pain in his stomach. I make him understand, you are not bound to make fast when you are ill. It may harm for your body. Now he agreed not to take the Fast. Oh Allah saved me.

Tuesday, June 30, 2015

যেখানে গেলে মন ভালো হবেই (I can assure, this place will refresh your mind)


[English version has given below]

একটা ব্যাপার নিয়ে মন মেজাজ খুব খারাপ ছিল (পরে বলব)। যখন লংকাউই দ্বীপে পৌছলাম, এত সুন্দর চারপাশ ! কিছু ক্ষনের মধ্যেই মন ভালো হয়ে গেল।
শীপ থেকে নেমেই দেখলাম চারপাশে সাদা সাদা অনেক বোট, নীল সমুদ্র আর সুন্দর জেটি।
গাড়ি ভাড়া করে রওনা হয়ে গেলাম পাহারের গা বেয়ে রাস্তায়। সুন্দর সবুজ, সাথে নীল সাগর, সুন্দর রোদ্র। কয়েক মিনিটে মনটা হালকা হয়ে গেল। কি সুন্দর চারপাশ, কি সুন্দর পরিবেশ, কি সুন্দর দিন, কি নির্মল হাওয়া!


I was really upset with some matters (May tell you later), but when we reached at Langkawi Island, I was just amazed how beautiful it is, within few minutes it changed my mind.

When we get down from the ship we saw there were many white boats around us, blue sea and beautiful jetty. We rented a car and started going towards the motel. I was watching from the care beautiful green with blue sea, beautiful sunlight. It really refreshes mind. What a beautiful this place is, beautiful environment, beautiful day with beautiful gentle breeze!

[April 28, 2007]

Monday, June 29, 2015

ভানু বন্দোপাধ্যায় (Bhanu Bandopadhdhay)

[English version has given below]

ভানু বন্দোপাধ্যায় এর নামের এবং কাজের সাথে আমার পরিচয় খুব ছোট বেলায়। আমার আব্বার কাছে তার কমিকসের ক্যাসেট ছিল। মাঝেই মাঝেই ক্যাসেট প্লেয়ারে  বাজিয়ে শুনতেন আর হাসতেন। ভানুর কিছু ডায়ালগ আব্বার খুব প্রিয় ছিল। যা আব্বা এমনি এমনিই প্রায়ই বলতেন, যেমন, "খড়ি মাটি দিয়ে লিইখা দিল, তর বাপে আইছিল ", "সালার মাউরা ভুত, যা কই  বুঝে না " ইত্যাদি। 

কিছুদিন আগে গাজী টিভিতে (টিভি চ্যানেল) দেখলাম, ভানু বন্দোপাধ্যায় এর জীবনের উপর অনুষ্ঠান। খুব ভাল লাগল শুনে যে উনি বিক্রমপুরের ছেলে (আমাদের বংশ ও  ওখান থেকে এসেছে)। গ্রামের লোকজন বলল, আমরা ভেবেছিলাম, এ এক হাবলা ছেলে, চুপচাপ থাকে, বেশি কথা বলেনা। পরে যখন দেখলাম, খুব বড় কৌতুক অভিনেতা হয়েছে, তখন বুঝলাম, এ আসলে অনেক বুদ্ধিমান ছেলে ছিল। 

ভানু বন্দোপাধ্যায় এর মা বাবা ও যুগে দুজনেই শিক্ষিত এবং চাকুরিজীবি ছিলেন। ভানু বন্দোপাধ্যায় পড়াশুনা করেছেন সেইন্ট গ্রেগরী , জগন্নাথ কলেজ আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালেয় থেকে। এরপর কলকাতায় যান। তখনকার যুগে এত শিক্ষিত একজন মানুস কৌতুককে পেশা হিসাবে নিয়েছেন এটা অনেক বড় বিষয়।

তার ভাষা কলকাতার সাথে মিলতো না, তাদের মতে তিনি বাঙাল ভাষায় কথা বলতেন (বিক্রমপুরের আঞ্চলিক ভাষায়), অথচ এই ভাষাই তার কৌতুককে করত আরো শ্রুতিমধুর। 

মনের গভীর থেকে ভানু বন্দোপাধ্যায়কে শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। 

I knew about Bhanu Bandopadhdhay from my childhood. My dad had cassettes of his comics, which he use play with cassette player regularly and laughed. He liked some of Bhanu's dialog very much that he said them many times and laugh, like, "Khori mati diya likkha dilo tor bape aichhilo (Write with a chalk that your dad had came)", "Bata maura vut ja koi bujhena (This Marowari language people talk unnecessary, never gets the point what I am saying)" etc.

Few days back I have seen a TV program (Gazi TV) on Bhanu Bandopadhdhay. Glad to see that he came from Bikrompur (Same like us). Their village people said, they thought this boy doesn't have enough brain, but later when they get to know that he became a great comedian then they realize this boy was very intelligent.

His mom and dad was very educated and both of them use to do job (Rare on those days). He studied in Saint Gregory high school, Jagannath College and University of Dhaka. Then he went to Kolkata. It's really matter of passion that he was very well educated but still took comedy as his main work.

His language wasn't same as Kolkata. The people of Kolkata said, it's Bangal Language. But this language gave him extra benefit in comedy.

From the bottom of my heart I salute this man.

Sunday, June 28, 2015

মালয় খাবার (Malaysian food)


[English version has given below] 

ফলের জুস : মালয়শিয়ায় বিভিন্ন রকম ফলের জুস খেয়েছি, যেমন আম, আঙ্গুর ইত্যাদি।  খেতে বেশ মজার । ওরা বিশাল গ্লাসে বরফ (আগেই দিতে বলতে হয়) দিয়ে ভরে জুস দেয়। বরফ গুলোর আকৃতিগুলো অদ্ভুত অনেকটা রিং চিপস এর মতন। মাঝখানে ফাকা।
গার্লিক ব্রেড: এর কথা আমি বা "গোপাল ভাঁর" কোনদিন ভুলবো কিনা সন্দেহ। লংকাউয়ই দ্বীপে প্রথম এই খাবারের অর্ডারই দিয়েছিলাম। দেশে কয়েকবার গার্লিক টোস্ট খেয়েছিলাম। আশা করেছিলাম ঐ জাতীয় কিছু হবে। দেয়ার পর দেখলাম পাউরুিটর মধ্যে কাঁচা রশুন ভরে দিয়েছে। সাথে আর কিছুনা। বহুকষ্টে একটা শেষ করলাম। "জানতে চাই" এর অনুরোধে "গোপাল ভার"ও একটা (নাকি শেষ করেনি?) খেলো। ফলাফল হলো খুব খারাপ। ৩দিন আমাদের গলা জ্বলেছিল। আর অন্য খাবারের টেস্ট পাওয়া শুরু করেছিলাম ১ দিন পর।
পাতোয়া: এটা ভালোই লেগেছিল, ডিম রুটির মতোন ভেজে তার ভিতর ফ্রাইড রাইস ভরে দেয়। এরা সস দিয়ে মনে হয় ভাজে। রাইস এর রং হয় লালচে আর মোটা চাল দিয়ে রাধে।
মাছ : আমি জানিনাহ কি মাছ। তবে ওরা কাঁচা মাছ দেখিয়ে দিয় বলল এটা রাঁধবে কিনা, আমরা ওর্ডার করলাম। খেতে খুবই মজা ছিল। 
সি ফুড: একদিন কোকো বিচ (রেস্টুরেন্ট) এ সি ফুড খেলাম। এদের খাবারও খুব মজা। দাম একটু বেশি হলেও অন্যান্য রেস্টুরেন্টের সি ফুডের তুলনায় কম। রেস্টুরেন্টের লোকেশনটাও খুব সুন্দর। সাগরের পারে । তীরে কাঁকড়া হেটে যাচ্ছে। রেস্টুরেন্টের চৌবাচ্চাতেও আছে কাকরা, মাছ আরও কি কি যেন। ওরা ডাবটা খুব সুন্দর করে কাটে, অনেকটা বৈয়ামের মতোন, ডাকনা খুলে স্ট্র দিয়ে পানি খেলাম। খাবার খুবই মজার।
চিকেন সান্ডউইচ: টুইন টাওয়ারে দ্বিতীয় তলায় খেয়েছি। আর্ট গ্যালারির পাশে। ওদের পরিবেশটাও একদম প্রথম শ্রেনীর । খাবার এবং দাম দুটোই লা জওয়াব।
টমিইয়াম: আমি এক চামচ খেয়েছি। যারা দুনিয়ায় ঝাল ছাড়া কিছু বোঝেন না, তাদের জন্য এই সুপ। এর ঝাল গোপাল ভাঁড় কেও ভুগিয়েছিল।

থাক আর লিখলে ক্ষুধা লেগে যাবে আমার এটুকুই যথেস্ট ।


Fruit juice: I have tasted different kinds of fruit juices in Malaysia, like mango, grapes etc. All were very delicious. What they do is first they fill the glass with the ice (Well you have to ask for it) then they give juice in it. The ice shapes are like the ring.

Garlic bread: I have taken Garlic bread several times in our country. But I don't know will we (I and Gopal Var) ever could forget about Garlic bread in Langkawi Island, Which the first food that we ordered in that island. When the Garlic bread came, we found they give us bread with raw garlic (Inside). I really felt difficult to take one piece. Gopal Var also finished (?) one as his wife "Jante chai" requested. The result was very poor; we faced trouble in our throat for 3 days. And we could feel the taste of food after one day.

Pataya: I liked this dish. Here they put fried rice inside fried egg. May be they use tomato sauce to fry the rice. Because the rice color is red and they are thick rice.

Fish: In the restaurant they show us raw fish and asked will we like to eat it. We replied yes and they cook for us. It was really delicious.

Sea food: One day we take dinner at KOKO Beach (restaurant). Here food is very delicious. Cost little high, but not much like other sea food restaurant. The location of the of the restaurant is really nice. The table was just beside the sea, we could see the night beauty of the sea, the crabs were all over walking all over the beach. In the restaurant there are some live fish, crab and other creatures in water. They way they give us green coconut water was really cool. It was like a tin with a cover. We remove the cover and drink the water with a straw.

Chicken Sandwich: I have taken chicken sandwich at Twin Tower, 1st floor. It was just beside the art gallery. The decoration was 1st class. The taste of the food and price both was very high.

Tome yam: This is a soup, I could take only one table spoon. People who like only hot spicy food, this one are for them. Even "Gopal var" faced problem after taking this soup.

Well, I think this is enough; I shouldn't make people hungry by this post :)

Friday, June 26, 2015

পিয়াজু (Piyaju)



[English version has given below]

বাংলাদেশের মানুষের ইফতারে এক অপরিহার্য খাবার হলো পিয়াজু। নাম শুনেই বুঝতে পারছেন, খবরটিতে যথেস্ট পরিমানে পিয়াজ থাকে। ইফতারে সাধারনত: মুড়ির সাথে খাওয়া হয়। অন্য সময় চায়ের সাথে নাস্তা হিসাবে খাওয়া চলে। পিয়াজু বিভিন্ন জিনিস দিয়ে বানানো যায়। আজ আমি আপনাদের দু'ধরনের পিয়াজুর কথা বলব। ডালের পিয়াজু আর মাছ-নুডলস এর পিয়াজু। 


উপকরণ:
মসুরের ডাল ৩/৪ কাপ
পিয়াজ কুচি ১.৫ কাপ
হলুদ গুড়া ১/২ চা চামচ
শুকনা মরিচের গুড়া (আপনি যেমন ঝাল পছন্দ করেন)
কাঁচামরিচ কুচি (দিলে ভাল)
পুদিনা পাতা বা ধনে পাতা কুচি (দিলে ভালো)
লবন (আপনার  আন্দাজ)
তেল (ভাজার জন্য)

রেসিপি:
- মুসুরের ডাল ধুয়ে পানিতে ২/৩ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন। 
- এরপর পানি ছেকে বেটে বা ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড বা হামান দিস্তায় ছেচে নিন। 
- এক বোলে পিয়াজ, হলুদ, শুকনা মরিচের গুড়া, কাঁচামরিচ, পুদিনা পাতা আর লবন খুব ভাল ভাবে মাখিয়ে নিন। 
- এবার বাটা ডাল মিশান। যদি ডাল হামান দিস্তায় পেস্ট করে থাকেন বা মাখানো ডাল যদি আঠালো না হয়, তাহলে এতে কর্নফ্লাওয়ার বা ময়দা দিয়ে কিছুটা আঠালো বানান।  যেন চপ এর মতো বানানো যায়। 
- চুলে তেল গরম করুন.
- তেল গরম হলে হাতে বা চামচে ডাল দিয়ে চ্যাপ্টা করে চপ বানিয়ে তেলে লাল করে ভেজে নিন। 

মাছের আর নুডলস এর পিয়াজু:

উপকরণ:
কুড়াল মাছ ১/২ কাপ (যে কোনো মাছ নেয়া যায়)
নুডলস ১ কাপ (সিদ্ধ)
পিয়াজ ১.৫ কাপ
কাঁচামরিচ কুচি (যেমন ঝাল চান)
গোল মরিচ (ইচ্ছা)
করনফ্লাওয়ার ১/২ কাপ
লবন (স্বাদ মতো)

রেসিপি:
সব একসাথে মাখিয়ে গরম তেলে চ্যাপ্টা চপের মতো ভেজে নিন.

পিয়াজু গরম গরম খেতেই ভালো লাগবে...

In Bangladesh, a very common Iftar menu is Piyaju. The name is came from Piyaj (Onion). So, in this recipe onion is a must. Generally we take Piyaju with puffed rice. Or we can take it with tea. Piyaju can be made with different ingredients. Today I am going to give two recipe of piyaju, like lentil piyaju and fish-noodles piyaju.

Lentil piyaju:

Ingredients:

Orange lentil 3/4 cup
Onion finely chopped 1.5 cup
turmeric powder 1/2 tea spoon
red pepper power (as you wish)
green pepper chopped (as much as you want)
mint or coriander leaf chopped (recommended) 
Salt (according to taste)
Oil (to fry)

- Wash the orange lentil and keep it in water for 2/3 hours.
- mash the lentil
- in  bowl take all ingredients except lentil and oil and mix it oil
- add lentil in the mixing bowl. If your doe doesn't became sticky then add some cornflour or flour till it become sticky enough to make chop
- put your pot on fire and warm the oil
- now make chop with your hand or spoon from the mixture and fry, till it become red.

Fish-Noodles piyaju:

Ingredient:

Threadfin fish 1/2 cup (You can take any fish you want)
Noodles 1 cup (Boiled)
Onion finely chopped 1.5 cup
Corn flower 1/2 cup
turmeric powder 1/2 tea spoon
red pepper power (as you wish)
green pepper chopped (as much as you want)
mint or coriander leaf chopped (recommended) 
Salt (according to taste)
Oil (to fry)

Recipe:
- Miss all the items in a bowl except oil.
- now warm the oil
- make chop with the mixer and fry it, till it became brown

Piyaju should be fry just before you take Iftar.

Thursday, June 25, 2015

ঘরের লক্ষী... (Luck of the house)


[English version has given below]

কোথাও শুনি, মেয়েরা হলো ঘরের লক্ষী, কোথাও বলে বউ হলো ঘরের লক্ষী। আমার মনে হয়, একটা মেয়ে ছাড়া যে কোন সংসার খুব খালি খালি লাগে। সব কিছু থাকার পরও কি যেন নেই। ঘরে যখন একটা মেয়ে আসে, পুরো সংসার কে সে গভীর মমতায় আগলে রাখে। একটা মেয়ে যখন বাপের বাড়িতে থাকে, সে তখন ঘরের লকেট হয়ে সবার মনের মধ্যমনি হয়ে থাকে। আর যখন একটা মেয়ে কারো ঘরে বউ হয়ে আসে, সে হয় ঘরের মুকুট। তার শোভা দেখতে সবাই আসে। সবাই তার কাছ থেকে কোন না কোন ভাবে ভালবাসা আশা করে। সব কিছুর মধ্যে সে এক অদ্ভুত আনন্দের আমেজ নিয়ে আসে। ঘর আলো করে। কোন কারনে সে কোথাও গেলে পুরো ঘর শুন্য হয়ে তার অপেক্ষা করে। মেয়ে তো ঘরের লক্ষী, তাকে ছাড়া কেমনে চলে?


We often hear that people are saying girls are the Luck of the house. Somewhere you may also catch Daughter in laws is the Luck of the house. I think, without a girl a room doesn't feel full, you will always feel something is missing. But when a girl/woman came into that house, you will feel the light of house just increased. She keeps every single thing (including human) with love and care. When a girl stays at her father's house, she is the locket of the heart of every person. When she went to her in-laws house, she becomes the crown of that house. Everybody goes there to see her. Everybody expect some love and care from her. She brings all kind of happiness to that family. If for any reason she left the home, the house became empty. She is the luck of the house, how can the house live without her?

[March 19, 2007]

Wednesday, June 24, 2015

সত্য ঘটনা: ভাইরা (মা এদের সমর্থন করেছেন!) ভাবিকে গলা ধাক্কা দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে (True story: His brothers (Their mother also support them!) kick out her with her family to the road.)

[English version has given below]

সত্য ঘটনা: পরিবারের বড় ছেলে। নিজে দিনরাত খেতে ব্যবসা দাড় করেছেন। ছোট ভাইদের নিজে টাকা পয়সা দিয়ে ব্যবসা ধরিয়ে দিয়েছেন। একদিন রাস্তায় সন্ত্রাসীদের গোলাগুলিতে একটা গুলি ওনার মাথার পাশে বীধে গেলো। জানে বেঁচে গেলেন, তবে শরীর অবশ হয়ে গেল। চরম বিপদে ভাইরা তার ব্যবসা পুরোপুরি দখল করে নিল। এই অবশ শরীরের ব্যক্তিকে বউ বাচ্চা সহ, চাকরদের ঘরে পাঠিয়ে দিল। ভাবী অনেক কান্নাকাটি করে অনুরোধ করলো, যে টাকা পয়সা দিতে হবেনা, শুধু অপারেশন করে গুলিটা মাথা থেকে বের করে দাও। ভাইরা (মা এদের সমর্থন করেছেন!) ভাবিকে গলা ধাক্কা দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে।

ভাবি তার স্বামী আর বাচ্চাদের নিয়ে একটা টিনের ঘর ভাড়া নিলেন। যে বাচ্চারা কখনো এয়ারকনডিশন ছাড়া থাকেনি, তারা এবার টিনের ঘরের তাপ সহ্য করতে পারলোনা, সারা শরীরে ফসকা পরে গেল। যারা কখনো বাস কি সেটা বোঝেনি, এখন তাদের নিয়মিত বসে চড়তে হলো। বাচ্চাদের মা আগে কখনো চাকরি করেননি, পড়াশুনাও বেশি জানেননা।  তাই মানুষের বাসায় কাজ করা শুরু করলেন। পয়সা বাঁচানোর জন্য বাসে না গিয়ে হেটে হেটে কাজে যেতেন। বাচ্চাদের ইংলিশ স্কুল থেকে বের করে সরকারী স্কুলে ভর্তি করিয়ে দিয়েছেন।

বাবার খুব সখ ছিলো, ছেলে ডাক্তার হবে। সংসারের এমন অবস্থা থেকে ছেলে মেয়েরাও অল্প বয়সে অনেক কিছু বুঝতে শিখেছে। তারা খুব মন দিয়ে পরে আর পাশাপাশি কাজ করে। সবার মনে আশা, একদিন পরিস্থিতি আবার ঠিক হয়ে যাবে....

বিপদে যখন আত্মীয়দের পাশে দাড়ানোর কথা, তখন তারাই সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করেছে। তাই এই মা সবাইকে বলেছেন, কারো উপর কখনো নির্ভর করোনা, নিজের শক্তির উপর ভরসা রেখ, বাকি আল্লাহর ইচ্ছা....

True story: There was a elder son of a family. Who worked really hard to build up his business. He has younger brothers. He gave money and build their business too. Life was going smoothly. But suddenly one day on the road he fall between firing of gun men and get shot on his head. He survived, but his body became paralyze for ever.

In this situation his younger brothers took all his business and shifted his family to the servant quarter. His wife cried and beg to his brothers, they don't have to give money but please help to make an operation so that the bullet will bring out from his head (Her husband). His brothers (Their mother also support them!) kick out her with her family to the road.

She rent a tin shaded one room for her family. Her kids were not use to live without air condition,  Here their skin burned with the hit. She take out them from the English Medium (Costly) School and admitted them to the government school. She wasn't educated enough to work outside, so had to take a job as a maid in others house. To save money she walks to her work place but don't take any bus.

Her kids became more intelligent and aware by watching their family situation. They are studying hard and also working to make a better life. The paralyzed father wanted to make their kid as Doctor and kids want to make it happen.

When they fall in trouble, the relatives should come and help first, but here it happen just opposite. So, this mother wanted to tell everyone that no body should trust and rely on any person. They should believe in their own strengths and have faith on Allah...

বিবাহের আনন্দ (The enjoyment of the marriage ceremony)


[English version has given below]

বিবাহ অনুষ্ঠানের  আনন্দ, কার বেশি হয়? অবশ্যই যার বিবাহ তার না। বিশ্বাস করুন আর নাই করুন, এটাই সত্যি। 
সাধারনত: আনন্দ বেশি হয় আত্মীয় স্বজনের। তারা কিভাবে আয়োজন করবে, কার কি দায়িত্ব হবে, কি কি দেয়া হবে, কি কি খাওয়া হবে, কয় রাত জাগা হবে, কি পরা হবে, যার বিয়ে তাকে কিভাবে সাজানো হবে ইত্যাদি ইত্যাদি। বিবাহের অনুষ্ঠানটা ওদেরই।
সবার আনন্দ দেখেও আনন্দ লাগছে।


Who enjoys most in a marriage ceremony? Not the bride or groom, trust me they don’t. Actually the relatives of bride and groom enjoy most. They enjoy every bit of the ceremony, like how to make over the bride, what will be food item, how to decorate, what will they wear, what are things that can be done etc. The enjoyments of the total ceremony are for them.
I felt happy, by watching these…

[March 10, 2007]

Monday, June 22, 2015

সত্য ঘটনা: এক পা (True story: one leg)

[English version has given below]

সত্য ঘটনা: একটি মেয়ে স্কুটার চালাচ্ছিলো। হঠাত এক্সিডেন্ট এ পায়ের হাড় সামান্য ফ্রাকচার হলো। কিন্তু এরপর ডক্টর এর ভুল অপারেশনে পা চিরতরে অবশ হয়ে গেল। মেয়েটি পায়ে আর কিছু অনুভব করে না। এই অবশ পা নিয়ে সে পরে গেল মহা মুশকিলে। কোনো কাজ ঠিকমতো করতে পারছিলনা। এমনকি বসা অবস্থা থেকে উঠতেও পারতো না। একদিন দেখল সেই পায়ে পিপড়া ধরেছে। নিজেকে আর ধরে রাখতে পারলনা, হু হু করে কেঁদে উঠলো। মেয়েটির মা শক্ত হয়ে মেয়েকে জড়িয়ে ধরলেন। সান্তনা দিলেন। দুজনে মালে ঠিক করলেন, নাহ এই পা আর রাখা যাবেনা, একে কেঁটে ফেলাই ভালো। 

এরপর এক পা নিয়ে শুরু হলো মা মেয়ের জীবন যুদ্ধ। কখনো মা মেয়েকে শক্তি দেন, কখনো মেয়েকে মা সাহস দেন। মায়ের প্রচন্ড উত্সাহে মেয়ে নাচা আরম্ভ করলেন এবং সবাইকে তাক লাগিয়ে দিলেন, শুধু এক পা দিয়ে এত সুন্দর নাচা যায়....

True story: A girl was riding a scooter. Suddenly an accident happens and her one leg got slight fracture. She went to a doctor and doctor made a mistake in his operation. So, her leg became paralyze forever. She falls in trouble with her leg. She couldn't do anything properly. No even she could stand up from the ground. One day ants attracted on her leg. This incident really breaks her down. On this moment her mother holds her strongly and gives her strength. They decide together that this leg has to be cut off.

Then the real life started. They hold each other up and keep giving strength. The mother suggested starting dancing, it was her hobby. She started dancing and makes people amazed, how beautiful she can dance with only one leg...

মানুষ চেনা (Know about the people)

 [English version has given below]

আমি মানুষকে সব সময় বিচার করি তার কাজের মাধ্যমে। আমি মনে করি, যে বড় বড় মিষ্টি কথা বলে, এটা মনে করার কারন নেই যে সে আমার ভাল চায়। বরং যে ভাল চায়, সে সেটা করে দেখায়। মানুষের পরিচয় মেলে তার কাজে, শুধু কথায় না। 
অনেক সময় দেখা গেছে, কারো কাজ, কথা আমার পছন্দ না। যার আচরনে আমি ধরে নিয়েছি, আমার সম্পর্কে এর ধারনা ভালোনা, এ আমার ভালো চায় না। পরে দেখা গিয়েছে, আমার বিপদে সেই আমার পাশে এসে দাড়িয়েছে, আমার হয়ে কাজ করেছে। আমি মুগ্ধ। এতো দিন কোথায় ছিল এ? আমার অন্ততরের অন্তস্থল থেকে রইলো তার জন্য দোয়া।


I always judge people by their work. I believe, who speaks sweet in front of me, doesn't mean they like me and want good for me. People who really want well for me will make it happen. You can know about a person from their work, not just on their words.

Let me give you an example, I don't like some one's work and word. Because of their attitude I guessed that this person doesn't like me at all and will never do anything for me. But later when I fall in trouble, I found that person just beside me and working to rescue me. I surprised, where were they lived before? From the bottom of my heart, I wish good for them...


[March 03, 2007]