Friday, February 27, 2015

We all should have Facebook account

[English version has given below]

কখনো কখনো এমন হয়েছে যে, কারো সাথে হয়তো একটু কথা হয়েছে, কারো সাথে সামান্য পরিচয় হয়তো হয়েছে, কাজের প্রয়োজনে কারো সাথে হয়তো সামান্য কাজ করা হয়েছে। তারপর আর যোগাযোগ নেই. যে যার মত দুরে সরে গিয়েছি। বহুদিন পর হঠাত কোনো প্রয়োজনে বা এমনিতেই তার কথা মনে পড়লে যোগাযোগ করতে চাইলেও আর সম্ভব হয়না।
তাই আমি বলি কি, সবারই উচিত একটা ফেইসবুক একাউন্ট খোলা আর মাঝে মাঝে অন্তত: দেখা। পরিচিত কাউকে পেলে এড করে রাখা। তাহলে অন্তত: এটুকু বলা যায়. যে কোন সময় আপনি চাইলেই তার সাথে কথা বলতে বা যোগাযোগ করতে পারবেন, আর সে চাইলে আপনার সাথে আর কথা না বলেও থাকতে পারবে। :)

Sometimes we meet people just for some moments, for any reason, sometimes we came near to people for work, and then we all go away on our own path and finally no communication left. After many years you may feel to communicate with them, want to know them how are they or any work may come where you need them, but there is no way to contact with them again.

So, my suggestion is we all should open one Face book account and should also check them regularly or with small gap of time. Then we can add anyone whom we know. So, no matter how long you talk with them or not you will have their info and whenever you want you can communicate with them and they also can ignore you if they wish :)

Thursday, February 26, 2015

বেদুইনদের সাথে ১ রাতে (One night with Bedouin)


[English version has given below]

সৌদিআরবে থাকতে আব্বা আম্মা প্রায় রাতেই লং ড্রাইভে বের হতেন, আমরাও থাকতাম গাড়ির পিছনের সিটে এবং ঘুমিয়ে পড়তাম। এক রাতে হইচই শুনে ঘুম ভেংগে গেল। দেখি আমাদের গাড়ি দাড়িয়ে আছে, আর আসে পাসে আরো কিছু গাড়ি দাড়িয়ে আছে, বেশ কিছু বেদইন জটলা করে কি নিয়ে যেন কথা বলছে। আববাও আছেন তাদের সাথে। আম্মা আমাকে বললেন চলো। আম্মার সাথে সাথে মরুর বালুর উপর দিয়ে হাঁটতে লাগলাম। আরোও কে কে যেন সাথে ছিল। অন্ধকারে বোঝা যাচ্ছিলো। কিছুদূর গিয়ে দেখলাম কতগুলো তাবু। সেখানে মেয়েরা আর ছোট ছোট বাচ্চারা আছে। সবাই খুব হাসি খুশি, আমাদের দেখে সাদরে অভ্যর্থনা করল। খাবার মনে যা ছিল সব আমাদের সামনে আনলো। আমি তো আরবী বুঝিনা, আম্মা অনুবাদ করে দিচ্ছিলেন। বালুতে ম্যাট্রেস পেতে সবাই খোলা আকাশের নিচে বসে, শুয়ে আড্ডা মারছিলো। বাচ্চারা ছোটাছুটি করছিল। বেশকিছুক্ষন পর লোকরা ফিরে এলো। বলল গাড়ির চাকা বালুর ভিতর থেকে তোলা গেছে। আমরা সেই হঠাৎ উপকারী বেদুইনদের কাছ থেকে বিদায় নিয়ে বাসায় এলাম। ঐ রাতে আব্বা আম্মা কি করতো ওরা না থাকলে, সাড়া রাস্তায় দুজনে এটা নিয়ে জল্পনা কল্পনা করছিল। আমি গাড়িতে
আবার ঘুমিয়ে পড়েছিলাম।

When we were in Saudi Arabia, my mom and dad use to go for long drive at night. We were also stayed in the car. At back sit we use to sleep. One night I was sleeping at the back sit and suddenly I woke up by hearing noise of lots of people. I saw our car's wheel is inside the sand. Some other cars are standing beside our car. Some Bedouin are discussing on some issue and my dad was also with them. My mom came to me and asked, let's go. I start walking with her on the sand with some more people, though in dark couldn't understand who they are. After some moment we reached near some tents where some women and kids welcome us. They brought food whatever they had with them. We sit on the mattress on the sand. Kids were playing. After some time boys returned, they succeed to get out the wheels from sands. Then we said good bye and thanked to those Bedouins. In the car my mom and dad was discussing what would happened if those Bedouins were not available to help us... and I fall in sleep again on back sit while listening their talking....

Wednesday, February 25, 2015

I can talk


[English version has given below]

এমনিতে আমি সবার সাথেই মিশতে পারি, মানে কথা চালিয়ে যেতে পারি। যদি না আই কিউ লেভেল খুবই নিচু মানের হয় বা ওই ব্যক্তি ভয়াবহ বদমেজাজি হন অথবা অতি মাত্রায় নিন্দুক হন.

তবে সত্যি সত্যি খুব ভাল লাগে কথা বলতে যদি ওই ব্যক্তির আই কিউ লেভেল আমার সমান পর্যায়ের বা তার বেশি হয়. আমি বুদ্ধিমান মানুষ পছন্দ করি.

তবে আমি পছন্দ করলে কি হবে. এরা সবাই যে আমাকে পছন্দ করেনা। তাই মন ভরে কথা বলাও আর হয়ে উঠে না.

Generally I can talk with anybody of any age, at least can continue conversations. Unless that person's IQ level is too low, too bad behaved or says too much negative words.

And I really like to talk with the persons who have very good IQ level either matches with me or they have higher level. I like intelligent people.

But no matter how much I like them, they (some of them) don't like me. So, I can't talk the way I want to with them.

Tuesday, February 24, 2015

আমার আর নড়ার উপায় ছিল না (I couldn't move)


[English version has given below]

আমাদের বাসায়, আমি বাদে, বাকি 4 ভাই বোনের সবার মধ্যেই  ভয়াবহ তেলাপোকা ভীতি আছে। তেলাপোকা উড়ে আসলে, সব চিৎকার করে ছুটে পালায়।

তখন হয়তো কলেজে পড়ি। আমরা 3 বোন একসাথে দাদার বিশাল খাটে ঘুমাতাম। একদিন মশারী টানিয়ে শুয়েছি , হয়তো চোখটা মাত্র লেগেছে (তখন শীতকাল চলছিল), সোনিয়াও শুয়ে পড়েছিল, শেখা মাত্র ঢুকেছে মশারীর ভিতর। এমন সময় শেখা হঠাৎ দেখল মশারীর ভিতর তেলাপোকা। ওমনি মেজপা!! (আমাকে এই নামেই) বলে চিৎকার করে একলাফে আমার লেপের উপর, লেপের নিচে ছিলাম আমি। সোনিয়া চিৎকার শুনে সেও আরেক লাফে আমার লেপের  উপর উঠে গেল। তারপর শুরু করল 2 জনে মিলে চিৎকার, "মেজপা মেজপা, তেলাপোকা, মারো, মেজপা মেজপা"। এদিকে আমি তো নড়তে পারছিনা। লেপের ভিতর থেকে বলছি, "আগে তো সড়ো আমার উপর থেকে, আমি তো বের হতেপারছিনা"। কে শোনে কার কথা....2/3 মিনিট পর ওদের কিছুটা হুস হলো, আমার উপর থেকে সরে, এক দৌড়ে মশারি থেকে বের হয়ে গেল। আর আমি উঠে বসে নিশ্বাস নিলাম....

[১৭ ই জুন, ২০০৬]

AT home, except me, my other 4 bro and sisters afraid of cockroaches. If they found one cockroach is flying, then will scream and run away...

On those days I was in college. We 3 sisters use to sleep together on our old styled big bed (got it from our grandfather). One day I setup the mosquito net and fall in sleep with my blanket (winter was going on). Sonia (my younger sister) also fall in sleep. On that moment, my youngest sister Shekha saw a cockroach. Immediately she screamed very loudly, "Mejopa (they called me with this name, means 2nd sister)!" and jump on my blanket (I was sleeping below). Sonia heard that shout, she also gave another jump and came on my blanket. Then both started screaming, "Mejopa, mejopa, cockroach, kill it, mejopa mejopa!".

Here you can understand my position, I can't move because of them. I was saying, "First get up from my body, I can't come out". But they are not in a position to listen to me. After 2/3 minutes they calm down a bit and give a quick run from me to go out from the mosquito net. Finally I could sit down and took a long breath...

Sunday, February 22, 2015

তারিখটা মনে রাখা একটু কষ্টকর (Difficult to remember this date)


[English version has given below]

২৩শে ফেব্রুয়ারী সংখ্যাটা ২১ শে ফেব্রুয়ারীর সাথে বেশ গোলমাল করে ফেলে। কেউ কেউ আমাকে একুশে ফেব্রুয়ারীতে শুভেচ্ছা জানাতো। এক সময় সবাই (বন্ধুরা) যাতে সহজে মনে রাখতে পারে তাই বলতাম, ২১ শে ফেব্রুয়ারীর (বিশ্ব মাতৃভাষা দিবস)  ঠিক ২ দিন পরে আমার জন্মদিন। আমার বন্ধুদের অনেকেই ২১শে ফেব্রুয়ারীর ঠিক ২ দিন আগে ফোন করে সারপ্রাইজ দিতে গিয়ে নিজেরাই সারপ্রাইজড হয়ে যেত :)

February 23rd is a very confusing date. People use to mix it with February 21 (World mother tongue day). Some sent me greetings at 21st February. To make it clear I use to say to my friends that my birthday is just 2 days after 21st February. But things didn't work that easy. Some of my friends called just 2 days before 21st February to surprise me, but actually they get surprised by knowing the real date :)

Saturday, February 21, 2015

কাঠের পুল (Wooden bridge)


[English version has given below]

জীপ থেকে নেমে মামার সামনে এসে দাড়ালাম। মামা বললেন, বাসা হাটা পথ এখানেই। আমি দেখলাম রাস্তা ওখানেই শেষ। মানে উপজেলা শহরে (নাইখংছড়ি) যাবার কোনো রাস্তা নেই! একটু এগিয়ে দেখলাম পাহারি নালা। মামা বলল বৃষ্টির সময় পাহারী ঢলে নামে। এরপর সেই নালার উপর ছোট্ট একটা কাঠের পুল এরপর ফুলের বাগান, গোলাপী ফুল ফুটে আছে। তারপর মামার কাঠের বাড়ি। আমি মুগ্ধ হয়ে গেলাম। এরপর যতদিন ছিলাম, কাঠের ঐ পুলটার উপর সময় পেলেই এসে দাড়াতাম। আমি এখনোও কাঠের ঐ পুলটাকে মিস করি।

[০৬ ই জুন, ২০০৬]

We get down from jeep after long journey from Ramu to Baisory. My uncle said, now we have to walk to reach home. I saw the road has finished on that spot. That means there is no road to go Naikhongchhori. We start walking, after few minutes I saw a narrow hilly river. My uncle said, in rainy season water rush here from the hills. Then he said here is our house. I looked at it, on the hilly river there was a small wooden bridge, then a wooden house and in front of the house there is flower garden. Pink colored flowers are blooming. In one word I felt heaven.
I stayed there for one week and whenever I got time I use to stand on that bridge. Still I miss that bridge...

Friday, February 20, 2015

Boys thinking


[English version has given below]

ছোটবেলা থেকেই একটা জিনিস আমি সব সময় লক্ষ্য করেছি, ছেলেদের সাথে আমার বনিবনা হয়না। ওদের চিন্তা-ভাবনা, কাজকর্ম, রিয়্যাকশন আমার ভালো লাগেনি। তাই সব সময়ই এদের সাথে কিছুটা দুরত্ব বজায় রেখে চলেছি।

আমার ছেলেকেও (৬ বছর বয়স) দেখি একই কাজ করছে। ওর ক্লাসে ছেলেমেয়ে একসাথে ক্লাস করে. তারপরও শাফিন শুধু ছেলেদেরই বন্ধু বানায়। আমি বললাম, তুমি মেয়েদের বন্ধু কেন হওনা ? ও বলল, "মেয়েরা তো জোরে জোরে দৌড়াতে পারেনা, বেশি লাফালাফি করতে চায়না"

স্কুল ছুটির পর কখনোও কখনোও ওর ক্লাসের মেয়ে এসে আমাকে অভিযোগ করেছে, "শাফিন আমার বন্ধু হতে চায় না". রীতিমতো চোখে পানি চলে এসেছে মেয়ের।
আমি শাফিনের উপর রেগে গেলাম. ডাক দিয়ে বললাম, "ও তোমার বন্ধু হতে চায় আর তুমি ওকে বন্ধু বানাচ্ছোনা কেন?"
শাফিন বলল, "ওত আমার সাথে রেস করতে পারবেনা।"
আমি বললাম, "আগে তো বন্ধু হতে দাও, হয়তো ও খুব ভাল ভাবে তোমার সাথে খেলতে পারবে। তার না পারলেও বন্ধু হলে তোমার সমস্যা কি? ও হয়তো তোমার খুব ভাল বন্ধু হতে পারবে। ও তোমার অন্যান্য বন্ধুর (ছেলে) মতো  মারামারি করবে না."
শাফিন বিরস মুখে রাজি হয়.

From childhood I have seen I faced problem in understanding with boys. Their way of playing, thinking, work, reaction didn't match with mine. So, I always try to keep some distance with boys.

Now, I found my son (6 years old) is doing same. He is studying in boys and girls combined school. But I found he is only making friends with boys. I asked him, why are you doing this? He replied, "Girls can't run fast like me, they don't like to do jumping...”

Sometimes girls complain me about Shafeen after school that Shafeen didn't accept to make friendship with her. I saw tears in their eyes. This really gives me anger. I asked Shafeen, what is this, why didn't you make friendship with her?

Shafeen, "She can't make race with me..."

I, "How do you know that? If she can't, it doesn't mean that she can't be a good friend. At least she is much better than your current friends (boys) who regularly fight with you."

Shafeen makes agree to make friendship with girls with a sad face...

Thursday, February 19, 2015

বান্দরবানের জীপ (The jeep from Bandorban)


[English version has given below]

ছোট মামা বাইসরি (বান্দর বনের নাইখংছড়ি উপজেলার একটা এলাকা) এর একটা রাবার বাগানের ম্যানেজার ছিলেন। সেই সূত্রে যাওয়া (ভুমিকাটা আর বড় না করি)। রামু (সম্ভবত:) থেকে জীপে উঠতে হবে। বেশ কয়েকটা পুরানো রং চটা জীপ দাড়িয়ে ছিল। মামা একটা জীপে টিকেট কাটলেন, মামী সহ আমাদের 3জনকে জীপের সামনে বসতে বললেন। ভাবলাম, এতো জায়গা থাকতে এরকম গাদাগাদি করে বসার মানেটা কি, যাই হোক তখনও বুঝিনি, আসলে আমি স্বর্গসুখে বসছি। একটুপর ড্রাইভার আসল, গাড়ি স্টার্ট নিলো। এবার শুরু হলো লোক ওঠার পালা। প্রথমে পিছনের সিট বা জায়গা ভরে গেল (দাড়িয়ে, বসে, বাঁকা হয়ে), এরপর ছাঁদ ভরলো, একমাছ ওয়ালা তার বিশাল টুকরি নিয়ে উঠেছিলো, এটা পরে বঝেছিলাম যখন মামীর গায়ে ঐ মাছের পানি গড়িয়ে পড়লো। এরপর গাড়ীর গা ঘেসে মানুষ ঝুলে পড়লো চারপাশটা পুরো ঢেকে গেল, এমনকি সামনে 2পাশের গাড়ীর দরজা (জানালাসহ) পুরোপুরি ঢেকে গেল। আমি ভাবলাম ওঠা শেষ হয়েছে, কিন্তু না, তখনোও আমার আশ্চর্য হবার অনেক বাকি ছিলো। এরপর জীপের সামনের অংশে জাতাজাতি করে লোক ভরে গেল। সবশেষে ব্যাপার হলো এই যে, কেউ দেখলে মনে করবে অনেকগুলো মানুষ একবারে জড়ো হয়ে কোনো চারকোনা কিছু তৈরি করেছে। আমি খুব ভালো ভাবে বোঝার চেষ্টা করলাম ড্রাইভার কিভাবে দেখছে, কারন জানালায় সামনে পাশে, সব জায়গায় শুধু মানুষ আর মানুষ। কিছুই দেখা যায়না। কিন্তু এর মধ্যেও ঐ লোক কিভাবে যেন আন্দাজ করে পাহাড়ি রাস্তায় নানা বাঁক পেরিয়ে, উঁচু নিচু রাস্তা পার হয়ে আমাদের গন্তব্যে নিয়ে গিয়েছিল।


My younger uncle (maternal) was working in Baisori (a small place at Nykhongchhori thana at Bandorban district) as a rubber plant manager. One day he took us to travel in that area. We had to start from Ramu (may be) by jeep. I saw few old jeeps were standing in a place. The condition of the jeeps was very poor even their body color can't be recognizable. My uncle cut tickets for us and asks us to sit at the front, beside the drivers sit. I really couldn't understand why 3 of us had to sit conjugated in that small place. But later I understood, actually we had got sit in a place like heaven, if we compare with other's sits.

Let me explain. When the driver came and start the jeep, first I saw the back of jeep totally filled with men (some got sit, some stands, some bent their body to adjust in a small space). Then people took place at the roof. A fisher man also took sit at the roof with his fish bucket; we got to know about it when some water from that bucket fall on my aunt's hand. Then people start standing by holding the jeep's body, so the jeep became cover with people including windows. Finally people took place at the front of the jeep. Now in this condition if anyone look at the jeep they will see some people get together and make something like square shape.

I was really worrying with the driving condition, how our driver is going to watch the road and will drive our jeep. I don't know how, he managed to ride this jeep in hilly, narrow, broken road in good speed and reach at the destination safely.

But one thing I must say... I really enjoyed the thrilling :)

Wednesday, February 18, 2015

Kids skin care



It's spring time going on, in Bangladesh. But still this season is very dry. So, you should take care of skin. Always put moisturizer on your skin.

When our kid stays in early age, we have to take care of them in every minute. Day by day they grow up and you can give them some the responsibilities of their own. Like my son (6 years old) now can put face cream on his face of his own. That's a relief too. At least one jobs less for a day…

Tuesday, February 17, 2015

ট্যাং চা বানানো (Tea with Tang)


[English version has given below]

অনেকেই কিছু না কিছু রান্না করে দেখাচ্ছে। আমি তাই অনেক ভেবে ভেবে বের করলাম, নতুন কি শিখেছি। যা আপনাদের সাথে শেয়ার করা যায়। হমম "ট্যাং দিয়ে চা"। এর স্বাদ , গন্ধ এবং চেহারা, এক কথায় অপূর্ব। তাহলে শুরু করি।

1. পানি গরম করতে দিন।
2. একটা মগে চিনি দিন (আপনার সুবিধা মতোন)।
3. এরপর একটু ট্যাং দিন (চা চামচের ১/৪ চামচ)।
4. টি ব্যাগ রাখুন মগে।
5.পানি গরম হয়ে গেলে মগে ঢেলে নাড়ুন।

দেখুন হয়ে গেল আপনার চা। খেয়ে তারপর না হয় আমাকে ধন্যবাদ দিবেন।
এটা বলেছেন আমাকে জানা ভাবী (মিসেস আরিল), সামহোয়্যার ইনের ফাউন্ডার এবং পার্টনার।

[০৯ ই মে, ২০০৬]

Many people are giving new food recipe in blog. So, I thought a lot, what I have learned recently which I can share with all. Yes "Tea with Tang". Its tastes flavor and look really gorgeous. Let’s start the process...

1. Put your water on heat.
2. In a mug take sugar (according to your choice)
3. Then add some Tang orange flavor (1/4 tea spoon)
4. Put your tea bag in to the bag
5. When your water started boiling drain them in you mug
6. Mix it with your spoon until nice color came (like lemon tea)

See, your tea is ready. Now take it and later you give me thanks. This recipe is given me Jana (Mrs. Arild), co-founder and partner of "somewhere in..."