Thursday, April 24, 2014

A man became a king after marriage in his in laws family


In Bangladesh after marriage a groom became a king in his in law’s house. His treats are totally different than any other person of this world. For him, bride’s mom will cook the best dishes. All will treat him very well to make him happy. He becomes the most honorable person in the house. Life will be   changed like a king after marriage. People don’t expect a groom to do anything.

Well marriage can’t be done by one person. Let’s look at the other side now. When the bride comes to in law’s family, people expect her to make everyone happy. By cooking, cleaning, take caring etc. She can’t talk loud in front of her in laws. She has to obey and do everything whatever asked by the in laws. Everybody expected to be treated like king from the bride.


Why this difference. Both people are marrying; both should enjoy new life in same way…. 

Wednesday, April 23, 2014

কারো কারো সাথে খুব কথা বলতে ইচ্ছা করে (Sometimes I wish to talk with some people)


কারো কারো সাথে খুব কথা বলতে ইচ্ছা করে, কাউকে কাউকে অনেক কথা জিজ্ঞেস করতে ইচ্ছা করে, অথচ কোনটাই সম্ভব না. কি আর করা মনের কথা মনেই থাক. এই ভাল. এভাবেই চলছে ভাল.

Sometimes I wish to talk with some people, sometimes I wanted to ask questions to some people. But none of them are possible. So what, let’s keep all in my mind, let’s go life this way. May be that's the better way...

Tuesday, April 22, 2014

Sitting under the shed and see the beauty of the Sea


It’s always good to sit in the shed then watch the Sea. The waves, peoples, sun, birds, ships, boats, and clouds everything looks very beautiful. And you can enjoy cold juices with a good company. I don’t know when I can go and enjoy like this… but I just wish…

Sunday, April 20, 2014

In an invisible jail


This world seems very big. It seems we are living in our own way over here. Actually it’s not that easy. We had to maintain many things, we can’t just say or do anything which seems right (not harmful for others) to us. We may see many dishonesty, misleading, wrong decision. But most of the times we can’t protest or may not even say anything. In the local area we had to listen to our local authority, then the country head and finally people who are leading the Earth. If anything go against them they might caught and destroy our life. So, finally what we found? We are living in an invisible jail, in our life.

Saturday, April 19, 2014

কেন একজনের ঘাড়ে সব কাজ চাপিয়ে আমি আরাম করব? (Why should I take rest while other is working hard?)


এক ভদ্রলোক ব্যাংকে কাজ করেন. সকালে উঠে নাস্তা করে বউ ছেলেকে নিয়ে একবারে গাড়িতে উঠেন. ছেলেকে স্কুলে নামিয়ে দিয়ে গাড়ির গ্যাস ভরতে যান, ড্রাইভারের সাথে. এরপর অফিসে যান. অফিস থেকে বাড়িতে ফিরে তবে একটু বিশ্রামের সুযোগ হয়. টিভি দেখে খেয়ে দেয়ে ঘুমিয়ে পরেন. কত কষ্টের জীবন তাইনা. জীবন জীবিকার জন্য করতেই তো হয়, তাইনা.

A gentle man is working at a Bank. In the morning he gets up, take breakfast then go out with wife and the kid to kid’s school by the car. After dropping his wife and kid in the school he went to Gas filling station with the driver. After filling the gas he picks up his wife from school and goes to the bank. Afternoon he comes back with his wife. Then found some time to rest. After watching TV and reading news paper he takes his dinner and fall in sleep. What a life, isn't it. But what can he do, for living he has to work hard.

এবারের বাড়ির আরেকজনের জীবনের দিকে একটু তাকাই. বাড়ির গৃহিনী খুব সকালে উঠেন. বাড়ির কর্তা এবং পুত্র তখনও ঘুমিয়ে. তিনি রান্না করেন. তারপর নিজের, স্বামীর এবং ছেলের (৩ জনের) লাঞ্চ আর টিফিন বক্স গোছান. এরপর নিজে তৈরী হন. ছেলেকে উঠিয়ে তৈরী করেন. তারপর স্বামীর সাথে বের হন. ছেলের স্কুলে নামেন. ছেলেক ক্লাসে বসিয়ে আবার নিচে নেমে স্বামীর জন্য অপেক্ষা করেন. স্বামী গাড়িতে গ্যাস ভরে ফিরে এলে গাড়িতে উঠে অফিসে যান. বাসায় ফিরে ৩ লাঞ্চ আর টিফিন বক্সের সব বাটি ধুয়ে রাখেন. ছেলেকে নিয়ে পড়াতে বসেন. রাতে ছেলে ঘুম পাড়িয়ে নিজে ঘুমাতে যান.

Let’s see other person’s life in the same house. The house manager woke up very early in the morning before the man and kid. Then she cooks and prepares lunch and Tiffin box  for herself, husband and the kid. Then she gets prepared for work and woke up her son. She make her son ready for school and feed him breakfast. Then she went to her kid’s school with her husband. In the school she go to her son’s class and sit him well and come down. When her husband came back with the car after filling the gas, she went to office with her husband. After office both come back from office. She went to kitchen and washes all 3 lunch boxes and Tiffin box. Then sit with her kid for his study. Then make him fall asleep and finally she got time to sleep.

এবার বলুন তো, কার শরীরে শক্তি বেশি? কে বেশি কাজ করছেন, বিশ্রাম না নিয়ে? কেন আমরা সমাজে শুধু একজনের কাজকেই বড় করে দেখি? আরেকজন এত বেশি কাজ করছেন সেটা কেন চোখে পড়েনা? কেন আমরা আমাদের বৌকে কাজে সাহায্য করিনা? তাহলে তো দুজনেই একসাথে কাজ করে একসাথে বিশ্রাম নিতে পারি. পুরুষের শক্তি বেশি হওয়া স্বত্তেও তাকে কেন বেশি আরাম করতে হবে?

Now tell me, physically who has more strength? Who is working hard without taking any rest? Why in our society we only notice one person’s work? Why we can’t see who is actually working more in the whole day? Why we don’t want to help our wife? If husband and wife work together then both can work together and can take rest together. While the man has more strength physically, why he need more comfort in life?

সকালে বউ যখন রান্না করে তখন বাবা ছেলেকে উঠিয়ে তৈরী করে দিতে পারেন. অথবা বউয়ের সাথে রান্নাঘরে এটা সেটা করে একটু সাহায্য করতে পারেন. তাতে দুজনে একসঙ্গে সময় কাটাতে পারবেন, সংসার নিয়ে আলোচনা করতে পারবেন, দুজনের মধ্যে সম্পর্ক আরো ভাল হবে, স্ত্রী স্বামীকে আরো ভালবাসবেন. বাসায় ফিরে স্বামী ছেলেকে নিয়ে প্ররে বসতে পারেন, ধোয়াধুয়ির কাজ একসাথে করা যায়. একসাথে কাজ করলে কাজ তারাতারি শেষ হবে. দুজনে একসাথে খানিকক্ষন সময় পাবেন বিশ্রামের.

In the morning while the wife working in the kitchen; husband can prepare the kid for school. Or he can also help his wife in the kitchen. Then both of them can have some time together, they can talk, this way their relation may became stronger, the wife will love and respect her husband more. After returning from office, husband can sit with his son for his study. He also can help his wife in dish washing. If they work together the work will be done in short time and both of them can have more time for leisure and can have time together.

কেন একজনের ঘাড়ে সব কাজ চাপিয়ে আমি আরাম করব? (Why should I take rest while other is working hard?)

Friday, April 18, 2014

Money saving package tour, does it worth?

Shafeen is in a restaurant at Saint Martin’s Island. The restaurant accommodation was poor, but hospitality and food was good. Photo credit: Shafeen

There are three ways of travel. One is luxury, another one is travel in cheap (as much as possible) and finally medium (I mean expend as much as you can bear). When you travel with a travel company (if it’s not a luxury tour) they will try to make accommodation everything as cheap as possible (they want to make profit as much as they can). So, they will keep you in a hotel, where you might not go generally, feed you in such a restaurant, where you never thought to eat anything. They will travel all night (to reduce hotel cost) and will make quick view of places (as much as possible in a day). They won’t let to stay anywhere whether it is Himalayan or a temple.


It’s always better to go by your own management and make happy tour.

Thursday, April 17, 2014

Handle lie and misunderstanding


I always faced problem and still facing with lie and misunderstanding. Still couldn't make any solution. Whenever I fall in trap of lie or misunderstanding, my heart breaks, I just become silent, nothing to prove the truth, no effort for solution. I don’t feel any strength to fight for me and my reputation. Because I don’t say worse side (even when it’s true) about others, people say many things about me. Well, it’s their nature, and they like to do this. When any of my well wisher believes those lie or misunderstands that dishearten me. My heart says, “You know me for many days, why did you believe this kind of word about me”. That makes me stop again. If you believe those things about me, then you don’t need to keep communication with me. Stay happy with distance.


History repeats. Now, my son is facing these problems. I never could protect or save myself from lie and misunderstanding, how can I help my son? Good news is he is not like me. He tells them”it’s a lie, I didn’t do this.” Though people don’t believe him, but at least he raises his voice. I tried to help him as much as I could. I tells them, what happened, now if they don’t take it what else I can do. I hope someday my son will find out how to prevent lie and misunderstanding. 

Tuesday, April 15, 2014

এবারের পহেলা বৈশাখ (this new year)


আগে সব বৈশাখ পালন করতাম, সেজেগুজে, দাওয়াত খেয়ে, ঘুরে বেরিয়ে. এবার প্রথম ঠিক করলাম, নিজে আয়োজন করব. আবার ছেলে নিয়ে একটু বেরও হব. মেনু ঠিক করলাম, স্টিম রাইস এর সাথে ইলিশ মাছ ভাজা আর ডাল সহ নানা শাক সবজির ভর্তা. রাতে ছেলেকে নিয়ে চাইনিজ সিজলিং এ যাব. যেখানে ভুতের আড্ডার মত ভুত দেখানো হয়.

প্লান মোতাবেক, ছেলে স্কুলে রেখে, রাস্তার পাশের নানা সবজি ওয়ালা থেকে নানা রকমের সবজি কিনলাম (পটল, ঝিংগা, পেপে, ঢেরস, সিম, ধনে পাতা, মিষ্টি আলু ইত্যাদি). সেই সাথে লেবু, ডাল, সরিষার তেলও কিনলাম. মিনা বাজার থেকে কিনলাম নাড়ু, ইলিশ মাছ. ৭০০ গ্রাম ইলিশ নিল ৫৫০ টাকা. বাসায় ফিরে সব সবজি ভিনেগার পানিতে ভিজলাম. এরপর তুলে শুকিয়ে মুছে প্যাকেট করে ফ্রিজে রেখে দিলাম.

রান্নায় দেরী হবে দেখে বৈশাখের সকালে আর নাস্তা বানালাম না. চা বিস্কুট দিয়েই কাজ চালালাম. ছেলেকে সাজিয়ে বাইরে ঘুরতে পাঠালাম. নাহলে ও কিছু করতে দিচ্ছিলনা. এরপর শুরু হল যুদ্ধ. মাছ ভিজিয়ে সবজি ধুয়ে কেটে  সিদ্ধ হতে দিলাম. পিয়াজ ছিলে কুচি করে কেটে রাখলাম. আম্মার বাগান থেকে কাঁচা মরিচ তুলে কুচি করে কাটলাম. ধনে পাতা বেছে ধুয়ে কুচি করে কেটে রাখলাম.

এরপর মাছ সামলাতে বসলাম. আগে কখনো ইলিশ মাছ রেডি করিনি. তবে খাওয়ার সময় কিভাবে কেটেছে সেটা দেখেছি. সেই আন্দাজে মাছের আঁশ ছারালাম. সেই আঁশ আমার সারা গায়ে আর রান্না ঘরে ছড়িয়ে গেল. সেটা পরিস্কার করলাম. মাছ কাটতে গিয়ে দেখি ডিম ওয়ালা মাছ. ডিম তুলে রাখলাম, পরে রান্না করা যাবে. ভোতা ছুরি দিয়ে মাছ কাটতে খবর হয়ে গেল.

মাছ ভিনেগার দিয়ে ভাল করে ধুয়ে লবন আর হলুদ দিয়ে মাখিয়ে রাখলাম ভাজার জন্য. আবার ভরতায় হাত দিলাম. এভাবে দুপুর ২টা পর্যন্ত যত পদের পারলাম তৈরী করলাম. এর মাঝে বরপা দিল টমেটো, ধনিয়া পাতা আর শুটকির ভর্তা আর আম্মা পাঠালো মিষ্টি আর দই.

সব মিলিয়ে বিশাল আয়োজন. খেতে বেশ ভালো লাগল. একেক সবজির একেক স্বাদ. শাফিনও খুব মজা করে খেল.

রান্নার কাজ শেষে কাপড় ধুয়ে নিলাম.

সন্ধায় মাগরিবের নামাজ পড়ে তৈরী হয়ে গেলাম নকল ভুতের আড্ডায়. মানে খিলগাঁও এর চাইনিজ সিজলিং এ. গিয়ে দেখি অনেক ভিড়. টেবিল পরিস্কার করতে, খাবারের অর্ডার নিতে, খাবার দিতে, বিল দিতে ওরা এত সময় নিল যে বাসায় ফিরতে ফিরতে রাত ১১ টা বাজল. তবে শাফিন দৌড়াদৌড়ি করে খুব মজা করেছে. ভুত দেখেও ব্যাপক আনন্দ পেয়েছে.

তার উপর পরেছিলাম এক পাগল রিক্সা ওয়ালার পাল্লায়. ব্যাটা একেকবার রিক্সার হ্যান্ডেল ছেড়ে দিয়ে দেখায় কত ভাল চালাতে পারে. আবার অন্য রিক্সা পাল্লা দিয়ে ধরে. কত কি বলে. ভালয় ভালয় ঘরে পৌছেছি সেটাই আল্লার কাছে হাজার শোকর.

অদ্ভুত ব্যস্ততায় আনন্দে দিনটা কাটল. 

Saturday, April 12, 2014

Unrest travel may cause tiredness

I and Shafeen at the ship on Bay of Bengal

We like traveling. It gives us pleasure not for that moment only but also for the rest of the life. Again, traveling should be comfortable and with rest. Unrest travel may give tiredness, then you can’t enjoy totally.


We made a tour to Saint Marin’s island for 12 hours. It was very nice. But at the end while returning home we became very tired. My suggestion is, if you make plan to travel to Saint Martin’s Island then plan to stay over there for one night at least. Then you will travel with full energy and fun.

Friday, April 11, 2014

Love makes people beautiful


When we were in school, we knew fall in love on that time (school life) is a crime. But still, few of our mates fall for it. And surprisingly we noticed their changes. Those girls became more beautiful, their attitude became gentle, and they are making good marks in exam. The last one we liked most. My best friend (from school) Masuma said, “I want to make love too. I want good marks in exam.”

Now at this stage, I know, love is beautiful, it makes most of the people beautiful, and it gives power to think better, live better and work better. Really, if you don’t trust me, then fall for someone and check my points J


But always remember, if you fall for wrong person, it will give you tremendous pain.